বাংলাদেশের রেকর্ড ৭.৮৬ শতাংশ জিডিপি প্রবিদ্ধি ঃ বাংলাদেশের অর্থনীতি ২০১৮

অর্থনীতির খবর

সাম্প্রতিক বছরগুলিতে বাংলাদেশ রেকর্ড অর্থনৈতিক বৃদ্ধি পেয়েছে। জাতীর  প্রতিষ্ঠাতা শেখ মুজিবুর রহমানের মেয়ে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ এসডিজি মানব উন্নয়ন সূচক এর হার, তার অর্থনীতি ও উন্নয়নের ডিজিটাল রূপান্তর এর সার্থকতাকে ফুটিয়ে তুলেছে। বিদ্যুৎ খাতের উন্নয়নের জন্য আওয়ামী লীগ সরকার  নেতৃত্ব সরকার সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার দিয়েছে এর ফলশ্রুতিতে  মোট জনসংখ্যার ৯০ শতাংশ মানুষ আজ বিদ্যুৎ ব্যবহারের সুবিধা পাচ্ছে।

লোই ইনস্টিটিউটের জরিপে এশিয়া-প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলের ২৫ টি শক্তিশালী দেশের মধ্যে বাংলাদেশ ১৮ তম স্থান অর্জন করেছে। আইএমএফের মতে ২০২১ সালের মধ্যে বাংলাদেশের অর্থনীতি ১৮০ বিলিয়ন ডলার থেকে বেড়ে ৩২২ বিলিয়ন মার্কিন ডলারে উন্নীত হবে।

বিভিন্ন পরিবেশগত চ্যালেঞ্জ সত্ত্বেও, বাংলাদেশ শক্তিশালী বৃদ্ধি বজায় রেখেছে। তার রপ্তানির উন্নতি অত্যন্ত প্রশংসনীয়  হচ্ছে । প্রধানত রেডি মেড গার্মেন্টস (আরএমজি) সেক্টরের নেতৃত্বে – ২০১১ সালে ৬.৩৩% বৃদ্ধির সাথে সাথে পূর্ববর্তী বছরের ৪% এবং রেমিটেন্সে। ১৭% বৃদ্ধি পেয়েছে।

বাংলাদেশের অর্থনীতি র পরিসংখ্যান
স্থুল আভ্যন্তরীণ উৎপাদন $২৮৫.৮১৭ বিলিয়ন (২০১৭ খ্রিস্টাব্দের প্রাক্কলন)[১]
স্থুল আভ্যন্তরীণ উৎপাদনপ্রবৃদ্ধি ৭.৬৫% (২০১৮ সালের প্রাক্কলন)[২][৩]স্থুল আভ্যন্তরীণ উৎপাদন
মাথাপিছু স্থুআউ $ ১৭৫৪(২০১৮সালের প্রাক্কলন)[
ক্ষেত্র অনুযায়ী স্থুআউ কৃষি (১৪%), শিল্প (৩২.৭%), সেবা (৫৩.৭%) (২০১৭-১৮ সালের প্রাক্কলন)[৫][৭]
মুদ্রাস্ফীতি ৫.৪% (২০১৭ খ্রিস্টাব্দের প্রাক্কলন)[৮]
দারিদ্র্যসীমারনিচে অবস্থিত জনসংখ্যা ১২.৯ (২০১৬ খ্রিস্টাব্দের প্রাক্কলন,$৩ নিচে প্রতিদিন আয়)[৯]
জিনি সূচক . ৩২০
শ্রমশক্তি ৮ কোটি ১৫ লক্ষ (২০১৭

সালের প্রাক্কলন)

পেশা অনুযায়ী শ্রম কৃষি (৬৫%), শিল্প (২৫%), সেবা (১০%) (২০০৫ সালের প্রাক্কলন)
বেকারত্বের হার অপরিবর্তিত 4.18% (FY2015-16)[১০]
প্রধান শিল্পসমূহ পাট উৎপাদন, সুতির টেক্সটাইল, গার্মেন্টস, চা প্রক্রিয়াকরণ, নিউজপ্রিন্ট কাগজ, চিনি, হালকা প্রকৌশল, রাসায়নিক দ্রব্য, সিমেন্ট, সার, খাদ্য প্রক্রিয়াকরণ, লোহা, ইস্পাত

 

 

পরিবর্তনশীল বছর এবং তুলনামূলক জিডিপি বৃদ্ধির হার এবং নেপাল, ভুটান, বাংলাদেশ, মালদ্বীপ, ভারত ও পাকিস্তান দেখতে টাইমলাইনে নির্দেশক ব্যবহার করুন।

বাংলার একটি ঐতিহাসিকভাবে সমৃদ্ধ অঞ্চল ছিল গঙ্গা ডেল্টা একটি হালকা, প্রায় উষ্ণ জলবায়ু, উর্বর মাটি, প্রশস্ত পানি এবং প্রচুর পরিমাণে মাছ, বন্যপ্রাণী এবং ফলের সুবিধা প্রদান করে। দক্ষিণ এশিয়ায় অন্যান্য অংশের তুলনায় জীবনযাত্রার মান উচ্চতর বলে মনে করা হয়।
জাতীয় দারিদ্র্যের হার গ্রামীণ ও শহুরে উভয় ক্ষেত্রেই পতিত হয়েছে। ২০১৮ সালে দারিদ্র্যের হার ২১.৪ শতাংশ এবং চরম দারিদ্র্যের হার ১১.৩ শতাংশ, যা ২০১৭ সালে যথাক্রমে ২৩.১ শতাংশ এবং ১২.১ শতাংশ ছিল।

বাংলাদেশ বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ ২০১৭ সালে বিদেশী ও যৌথ উদ্যোগের সূত্র থেকে বিনিয়োগের জন্য ২৩.২৫ বিলিয়ন ডলারের প্রস্তাব গৃহীত হয়েছে।

রপ্তানি এবং ব্যক্তিগত বিনিয়োগ মূল বৃদ্ধি ড্রাইভার হতে পারে। গত ১০ বছরে জাতীয় বিদেশী রিজার্ভ পাঁচগুণ বেড়েছে ২০০৭-0৮ অর্থবছরের ৬.১৪ বিলিয়ন ডলার থেকে মার্চ ২০১৭ সালে ৩২.২১ বিলিয়ন ডলার এবং আগস্ট ২০১৭ সালে ৩৩ বিলিয়ন ডলারে উন্নীত হয়েছে।

 

২০১০ সালের আগস্ট মাসে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের স্টক মার্কেট সাইজ ৫০ বিলিয়ন ডলার অতিক্রম করেছে। সাম্প্রতিক বিশ্বব্যাপী মন্দার সময় ২০০৭ থেকে ২০১০ এর মধ্যে বাংলাদেশ এশিয়ার সেরা কার্য সম্পাদনকারী স্টক মার্কেট ছিল।

পুঁজি বাজারের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ  হচ্ছে ব্যাংকিং সেক্টর, । রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন বিভিন্ন ব্যাংক বাংলাদেশ ব্যাংক হতে নানা রকম দিক নির্দেশনা  পর সম্পদ ও  প্রশাসনিক  ব্যবস্থায় উন্নতি করতে পারছে না । খেলাপি  ঋণের  বোঝা বেরে যাওয়া  বাংলাদেশের ব্যাঙ্কিং সেক্টর এর জন্য সবচেয়ে হুমকি । যা হয়ত অর্থনীতির এই উন্নতির ধারাকেও রহিত করতে পাড়ে ভবিষ্যতে     ।

Record 7.86 Percent GDP Growth Of Bangladesh Economy In 2018

 

Devs-AK

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *