.

প্রধানমন্ত্রীকে মোদী ও মমতার ঈদুল আজহার শুভেচ্ছা

ঢাকা, ৪ আগস্ট, ২০২০ (বাসস) : ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী পবিত্র ঈদুল আজহা উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং বাংলাদেশের জনগণকে আন্তরিক শুভেচ্ছা জানিয়েছেন।
প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম বলেন, ভারতের প্রধানমন্ত্রী শুক্রবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে একটি বার্তা পাঠিয়ে শুভেচ্ছা জানান।
মোদীর বার্তাকে উদ্ধৃত করে প্রেস সচিব বলেন, ঈদুল আজহা উপলক্ষে আমি বাংলাদেশের জনগণ ও সরকারকে আমার আন্তরিক শুভেচ্ছা জানাচ্ছি।
ভারতের প্রধানমন্ত্রী বলেন, ঈদুল আজহার উৎসব, যা ভারতের বেশ কয়েকটি অংশেও পালিত হয়, ‘আমাদের গভীর ঐতিহাসিক এবং সাংস্কৃতিক সংযোগের কথা মনে করিয়ে দেয়।
তিনি বলেন, ‘আমরা আশা করি, এই উৎসবটি আমাদের নিজ-নিজ সমাজে শান্তি ও সহনশীলতার চেতনা আরও বাড়িয়ে তুলবে এবং আমাদের দু’দেশের মধ্যে ভ্রাতৃত্বপূর্ণ সম্পর্ককে উৎসাহিত করবে।’
প্রেস সচিব বলেন, মোদি ঈদ উপলক্ষে শেখ হাসিনা এবং বাংলাদেশের সকল মানুষের সুস্বাস্থ্য ও সমৃদ্ধি কামনা করেছেন।
চলমান করোনাভাইরাস মহামারী সম্পর্কে বলতে গিয়ে ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী, শেখ হাসিনার বলিষ্ঠ নেতৃত্বে বাংলাদেশে যে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হচ্ছে তার প্রশংসা করেছেন।
তিনি বলেন, ‘যেহেতু উভয় দেশ কোভিড-১৯ পরিস্থিতি মোকাবিলা করে চলেছে, আমরা আপনার বলিষ্ঠ নেতৃত্বের অধীনে বাংলাদেশে যেসব পদক্ষেপ গ্রহণ করা হচ্ছে তার জন্য প্রশংসা করি।’
মোদী আস্থা ব্যক্ত করে বলেন, এই চ্যালেঞ্জিং সময় পাড়ি দিতে সক্ষম হবে। তিনি বলেন, ‘আমরা স্বাস্থ্য খাতে সক্ষমতা বৃদ্ধিসহ আপনাদের যে কোন উদ্যোগে সহযোগিতা করতে প্রস্তুত রয়েছি।’
এদিকে, পবিত্র ঈদুল আজহা উপলক্ষে পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও বাংলাদেশের জনগণকে আন্তরিক শুভেচ্ছা জানিয়েছেন।
প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম বলেন, পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী প্রধানমন্ত্রীর কাছে পাঠানো এক চিঠিতে এ শুভেচ্ছা জানান।
চিঠিতে মমতা বলেন, ‘পবিত্র ঈদুল আজহা উপলক্ষে আপনাকে, আপনার পরিবারকে এবং আপনার মাধ্যমে সকল বাংলাদেশীকে আমার অনেক অনেক শুভেচ্ছা জানাচ্ছি।’
পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী চিঠিতে আরো বলেন, ‘ঈদুল আজহা ত্যাগের উৎসব। বাংলাদেশের পাশাপাশি ভারতবর্ষ তথা পশ্চিমবঙ্গেও এই দিনটি যথাযথ মর্যাদা সহকারে পালিত হয়। আশা করবো এই উৎসব আপনার খুব ভাল কাটবে।’
মমতা বন্দোপাধ্যায় বলেন, ‘ভৌগোলিকভাবে পশ্চিমবঙ্গ ও বাংলাদেশ ভিন্ন হলেও আমরা পরস্পরের একান্ত আপন। দুই বাংলার ভাষা ও সংস্কৃতি এক। তাই উৎসবের আনন্দও ভাগ করে নিতে এই পত্রের অবতারণা।’
প্রধানমন্ত্রীর উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, ‘আপনার নেতৃত্বে আমাদের পরম প্রতিবেশী বাংলাদেশ রাষ্ট্রের আরো শ্রীবৃদ্ধি হবে, এই কামনা করছি।’ চিঠিতে তিনি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সুস্বাস্থ্য ও দীর্ঘায়ু কামনা করেন।