.

বর্ণবাদ বিরোধী বিক্ষোভ ‘অভ্যন্তরীণ সন্ত্রাস’ : ট্রাম্প

কেনোশা (যুক্তরাষ্ট্র), ২ সেপ্টেম্বর, ২০২০ (বাসস ডেস্ক) :প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প মঙ্গলবার কেনোশা সিটিতে আইন শৃংঙ্খলা রক্ষায় কড়াকড়ি আরোপের নির্দেশ দিয়ে সাম্প্রতিক বর্ণবাদ বিরোধী বিক্ষোভে সংঘবদ্ধ সহিংসতাকে “অভ্যন্তরীণ সন্ত্রাসী” কার্যক্রম হিসেবে বর্ণনা করেছেন।
কৃষ্ণাঙ্গ এক ব্যক্তিকে পুলিশের গুলির ঘটনায় সর্বশেষ কেনোশা সিটিতে এই দাঙ্গা ছড়িয়ে পড়ে।
ট্রাম্প কয়েক মাস ধরে ডেমোক্র্যাট জো বাইডেনের সঙ্গে নির্বাচনী লড়াইয়ে করোনাভাইরাস মহামারি নিয়ন্ত্রণে তার ব্যাপক কার্যক্রম থেকে বেরিয়ে দেশে একটি স্বস্তিদায়ক আইন শৃংঙ্খলা পরিস্থিতির আশা করছিলেন।
উইসকনসিন অঙ্গরাজ্যের কেনোশা সিটিতে এক শেতাঙ্গ পুলিশ কর্মকর্তা আফ্রিকান আমেরিকান কৃষ্ণাঙ্গ যুবক জ্যাকব ব্লেককে তার তিন শিশু পুত্রের সামনে গুলি করার ঘটনায় নতুন করে এই দাঙ্গা ও সহিংসতা ছড়িয়ে পড়ে।
গত সপ্তাহে এই ঘটনায় বিক্ষুব্ধ প্রতিবাদকারীরা কয়েক রাত ধরে সিটির ব্যাপক ক্ষতিসাধন করে, এ সময় দুই ব্যক্তি প্রাণ হারায়।
ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা পরিদর্শন শেষে ট্রাম্প বলেছেন, “এটি কোন শান্তিপূর্ণ বিক্ষোভ কর্মসূচি ছিল না, এটি ছিল অভ্যন্তরীণ সন্ত্রাস।”
প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের গাড়িবহর ক্ষতিগ্রস্ত এলাকায় যাওয়ার পথে রাস্তা ব্যারিকেড দিয়ে রাখা হয়, একদিকে ট্রাম্প সমর্থক এবং অপরদিকে ব্লাক লাইভ ম্যাটার প্রতিবাদকারীরা নির্দিষ্ট দূরত্বে অবস্থান নেয়, কখনো কখনো উভয়পক্ষ চেঁচিয়ে মুখোমুখি বিতর্কে জড়িয়ে পড়ে।
কড়া নিরাপত্তা ও সড়কে ব্যারিকেটের মধ্যে ট্রাম্প পুড়ে যাওয়া দোকানপাট পরিদর্শন করেন, স্টোর মালিকদের সঙ্গে কথা বলেন এবং “আমরা আপনাদের প্রতিষ্ঠান পুননির্মানে সহায়তা দেব” বলে তাদের আশ্বাস দেন।
ট্রাম্প এ সময় সহিংস বিক্ষোভ দমনে আইন শৃংঙ্খলা বাহিনীর প্রশংসা করেন। তিনি উইসকনসিন প্রশাসনকে আইন শৃংঙ্খলা, ক্ষুদ্র ব্যবসা ও জননিরাপত্তার জন্য ৪৭ মিলিয়ন ডলার দেয়ার ঘোষণা দেন। তিনি বলেন, “আমরা কেনোশাকে আগের অবস্থায় ফিরিয়ে দেব।”