.

বাংলাদেশে বিদেশি শিল্প-কারখানা স্থানান্তরের সুযোগ সৃষ্টি হয়েছে : শিল্পমন্ত্রী

ঢাকা, ২৭ আগস্ট, ২০২০ (বাসস) : করোনা পরবর্তী পরিস্থিতিতে বাংলাদেশে বিদেশি শিল্প-কারখানা স্থানান্তরের সুযোগ সৃষ্টি হয়েছে উল্লেখ করে শিল্পমন্ত্রী নূরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ুন বলেছেন, এ সুযোগ কাজে লাগাতে বিদেশী বিনিয়োগকারীদের জন্য ওয়ানস্টপ সার্ভিস চালুর পাশাপাশি অন্যান্য নিয়ম-কানুন সহজ করতে হবে।
বৃহস্পতিবার চলতি অর্থবছরে শিল্প মন্ত্রণালয়ের বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচিতে (এডিপি) অন্তর্ভুক্ত প্রকল্পগুলোর বাস্তবায়ন অগ্রগতি পর্যালোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।
শিল্প মন্ত্রণালয়ে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়। শিল্প প্রতিমন্ত্রী কামাল আহমেদ মজুমদার এতে বিশেষ অতিথি ছিলেন। শিল্প সচিব কে এম আলী আজমের সভাপতিত্বে সভায় মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা এবং মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন বিভিন্ন সংস্থা ও কর্পোরেশনের প্রধানরা উপস্থিত ছিলেন। এসময় বিভিন্ন প্রকল্পের পরিচালকরা ভার্চ্যুয়াল মাধ্যমে সংযুক্ত ছিলেন।
শিল্প মন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশের বিপুল শ্রমশক্তি, অভ্যন্তরীণ বিশাল বাজার এবং করোনা পরিস্থিতি মোকাবেলায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঠিক সিদ্ধান্ত ও দূরদর্শিতার ফলে তৃণমূল পর্যায়ে জনগণের মনোবল চাঙ্গা করার পাশাপাশি অর্থনৈতিক কর্মকান্ড ও শিল্প উৎপাদন কার্যক্রম গতিশীল হয়েছে। বাংলাদেশ সহ¯্রাব্দ উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা (এমডিজি) অর্জনে সাফল্যের ধারাবাহিকতায় টেকসই উন্নয়ন অভিষ্ট অর্জনেও সাফল্যের সাক্ষর রাখবে বলে তিনি উল্লেখ করেন।
তিনি বলেন, ক্ষুদ্র শিল্প উদ্যোক্তাদের জন্য বিসিক শিল্পনগরী এবং বিদেশি উদ্যোক্তাদের জন্য চিনিকলের অব্যবহৃত জমিতে শিল্প স্থাপনের সুযোগ করে দিয়ে অর্থনৈতিক কর্মকান্ড চাঙ্গা করতে হবে। বর্তমান সরকার দেশেই নিজস্ব ব্র্যান্ডের গাড়ি উৎপাদন করবে উল্লেখ করে তিনি বলেন, এ লক্ষ্যে অটোমোবাইল শিল্পনীতি হচ্ছে। পাশাপাশি কর্মসংস্থান সৃষ্টি ও আমদানি বিকল্প পণ্য উৎপাদনে হালকা প্রকৌশল শিল্পখাতের বিপুল সম্ভাবনা কাজে লাগানো হবে।
সভায় জানানো হয়, বাস্তবায়নাধীন প্রকল্পগুলোর কার্যক্রম মাঠ পর্যায়ে তদারকি করতে শিল্প মন্ত্রণালয় থেকে ৭টি মনিটরিং টিম গঠন করা হয়েছে। এসব টিম প্রতিমাসে সরেজমিনে প্রকল্পের উন্নয়ন কার্যক্রম এবং সমস্যা চিহ্নিত করে এডিপি পর্যালোচনা সভায় প্রতিবেদন উপস্থাপন করবে। এর ভিত্তিতে মন্ত্রণালয় থেকে প্রকল্প বাস্তবায়ন সংশ্লিষ্ট যে কোনো সমস্যা দ্রুত সমাধানের উদ্যোগ নেয়া হবে।
বিশেষ অতিথির বক্তব্যে শিল্প প্রতিমন্ত্রী কামাল আহমেদ মজুমদার বলেন, চিনিকলসমূহের চিনি উৎপাদনের পরিমাণ বাড়াতে আখের উন্নত জাত সৃষ্টি করার লক্ষ্যে বাংলাদেশ ইক্ষু গবেষণা ইনস্টিটিউটকে শিল্প মন্ত্রণালয়ের অধীনে নিয়ে আসার উদ্যোগ গ্রহণ করা হবে। প্রতিমন্ত্রী অডিট টিম গঠন করে বাংলাদেশ চিনি ও খাদ্য কর্পোরেশনের অর্থনৈতিক অবস্থা যাচাইয়ের পরামর্শ দেন।
শিল্প প্রতিমন্ত্রী আধুনিক প্রযুক্তি সম্পন্ন নতুন চিনিকল স্থাপনের লক্ষ্যে গৃহীত কার্যক্রম দ্রুত এগিয়ে নিয়ে যাবার নির্দেশনা দেন। তিনি বলেন, বিসিক শিল্পনগরীসমূহে রাস্তাঘাটসহ উৎপাদন কার্যক্রম পরিচালনায় প্রয়োজনীয় পরিষেবাসমূহের মান যাতে অক্ষুন্ন থাকে সেটি অবশ্যই নিশ্চিত করতে হবে।