পার্সোনাল প্রটেকটিভ ইক্যুইপমেন্ট তৈরির সাথে সাথে রপ্তানির দিকে নজর দিচ্ছে বাংলাদেশ

বাংলাদেশের আগে পিপিই তৈরির অভিজ্ঞতা না থাকলেও বিজিএমইএর সদস্যরা এবার বাংলাদেশের সকল চাহিদা মিটিয়ে রপ্তানির কথা ভাবছেন ।মেডিকেল গ্রেড বা ডব্লিউএইচও স্ট্যান্ডার্ডের প্লাস্টিক কাপড় চীন থেকে আমদানি করতে হয়। বাংলাদেশ এখন নিজেই এগুলো বানাতে চেষ্টা করছে । এই নিয়ে বিজিএমইএর সভাপতি রুবানা হক রোববার এক বার্তায় বলেন ” আগামী ছয় মাসের মধ্যে লেভেল ৩/৪ বা চিকিৎসকদের ভাইরাসপ্রতিরোধী পিপিই তৈরির ‘সক্ষমতা অর্জন করা সম্ভব’। তিনি আরো বলেন আমরা এখন যা তৈরি করছি সেটা হবে লেভেল-১ পিপিই। করোনাভাইরাস আক্রান্ত রোগীদের চিকিৎসার কাজে নিয়োজিত ডাক্তারদের জন্য প্রয়োজন হবে লেভেল-৩/৪ মানের পিপিই। এছাড়া আমাদের পিপিইগুলো স্বীকৃত নয়। এটা কেবল শতভাগ পানিরোধী পোশাক। এর ডিজাইন আসল পিপিইর মতোই। এগুলো বেশিরভাগ ক্ষেত্রে চিকিৎসা সহকারীরা ব্যবহার করবে। এছাড়া এখনকার পরিস্থিতিতে যেসব চিকিৎসকরা তাদের নিয়মিত কাজে যোগ দিতে ভয় পাচ্ছেন তারাও ব্যবহার করতে পারবেন,” বলেন ‍রুবানা।